মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪, আষাঢ় ৪ ১৪৩১

টোকিওতে ২৩ তম বৈশাখী মেলা ও কারি ফেস্টিভ্যাল

মিথুন রিবেরু

প্রকাশিত: ২০:৩৩, ২৪ এপ্রিল ২০২৪

টোকিওতে ২৩ তম বৈশাখী মেলা ও কারি ফেস্টিভ্যাল

ছবি- সংগৃহীত

টোকিওতে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ২৩ তম বৈশাখী মেলা ও কারি ফেস্টিভ্যাল টোকিও থেকে পি আর প্ল্যাসিড জাপানের রাজধানী টোকিও'র তোশিমা ওয়ার্ডস্থ ইকেবুকুরো স্টেশন সংলগ্ন নিশিগুচি পার্কে প্রতিবারের ন্যায় এবারেও অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ২৩ তম টোকিও বৈশাখী মেলা ও কারি ফেস্টিভ্যাল ১৪৩১।

 গত ২১ এপ্রিল ২০২৪ রবিবার, সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত চলে জাপানে বাঙালীদের এই প্রাণের অনুষ্ঠান। মেলায় জাপানের বিভিন্ন এলাকায় বসবাসরত কয়েক হাজার ছাত্র ও বিভিন্ন পেশার লোকদের পদচারণায় মেলা প্রাঙ্গণ হয়ে উঠেছিল কয়ের ঘন্টার জন্য প্রবাসে এক টুকরো বাংলাদেশ। বাংলাদেশীদের পাশাপাশি জাপানে বসবাসরত অন্যান্য দেশের নাগরিকদের অংশগ্রহণ ছিল চোখে পড়ার মতো।

 মেলায় ফুসকা, ঝালমুড়ি সহ বাংলাদেশী নানা খাবার, পোশাক ও বিভিন্ন সামগ্রীর স্টল বরাদ্দ ছিল। বিশেষ করে খাবারের স্টল গুলোতে উপচে পরার মতো ভীড় লক্ষ করা যায়। মেলায় জাপান প্রবাসী লেখক লেখিকাদের বই বিক্রি করতেও দেখা যায়। অনেকে প্রবাসে এই মেলায় এসে পুরোনো দিনের বন্ধুদের দেখা পেয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে যান। হাসি ঠাট্টা আর পুরোনো দিনের নানা বিষয় নিয়ে আলাপ চারিত করতে আড্ডা জমিয়ে তোলেন। তাদের অনেককে বলতে শোনা যায় টোকিও বৈশাখী মেলায় এসে ঢাকার রমনায় বটমূলের কথাই মনে করছেন।

 একদিনের এই মেলা উপলক্ষে বাংলাদেশ, কোরমালোয়েশিয়া, ফিলিপাইন সহ বিভিন্ন দেশ থেকেও বাঙালিরা এসেছিলেন তাদের বন্ধু, আত্মীয় পরিজনদের সাথে দেখা করতে এসে মেলায় আনন্দ উপভোগ করতে। সকাল থেকে ছিল শিশুদের নিয়ে বিশেষ আয়োজন, নৃত্য ও সঙ্গীত পরিবেশ।

মেলা উপলক্ষে আমেরিকা থেকে কণ্ঠশিল্পী বেবী নাজনীনকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। মঞ্চে কণ্ঠশিল্পী বেবী নাজনীনের সঙ্গীত পরিবেশন চলাকালে রাজনৈতিক দলীয় কর্মীদের মধ্যে শিল্পীর বিষয়ে কিছুটা হট্টগোলের সৃষ্টি হলে পুলিশের সহায়তায় তা নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। পরে পুলিশের দেয়া সীমিত সময়ের মধ্যে অনুষ্ঠান শেষ করে শিল্পীকে স্থান ত্যাগে সহায়তা করেন মেলা কমিটির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ।